১৫তম খণ্ড

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ: দলিলপত্র থেকে বলছি (১৫ তম খণ্ড)

দলিল প্রসঙ্গঃ সাক্ষাৎকার

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের মুদ্রিত দলিলপত্র-খণ্ডসমূহের সম্পূরক হিসেবে এই খণ্ডটির পরিকল্পনা করা হয়েছে। স্বাধীনতা লাভের প্রায় এক দশক পরে স্বাধীনতা যুদ্ধের ইতিহাস সংকলনের গুরুদায়িত্বে এই প্রকল্পের সামনে একটি প্রধান সমস্যা ছিল পর্যাপ্ত দলিল ও তথ্য হাতে পাওয়া ।এই প্রসঙ্গে ভূমিকায় বিশদভাবে বলা হয়েছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধ সম্পর্কিত বিপুল সংখ্যক দলিলপত্র প্রকল্পে সংগৃহীত হয়েছে এবং সেগুলো থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণ প্রথম থেকে চর্তুদশ খণ্ডে মুদ্রিত হয়েছে। তা সত্ত্বেও এমন অনেক বিষয় রয়েছে যেগুলোর কোন লিখিত দলিল নেই । আবার প্রাপ্ত দলিল ও তথ্যাদি কোনো ঘটনাদির ব্যাখ্যা অপর্যাপ্ত রয়ে গেছে যেসব ক্ষেত্রে ঐ সকল ঘটনার সঙ্গে যারা সংশ্লিষ্ট ছিলেন কিংবা যারা সে সম্পর্কে ওয়াকিবহাল তাঁদের মৌখিক বিবরণই সম্যক ধারণা দিতে পারে। এছাড়া নেতৃস্থানীয় ব্যাক্তিত্ব -যারা স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন তাঁদের তৎপরতার নানা কথা একমাত্র সাক্ষাৎকারের মাধ্যমেই পাওয়া সম্ভব। অতএব এই খণ্ডটি স্বাভাবিকভাবেই প্রকল্পের দলিলপত্র খণ্ড সমূহের অন্তর্ভূক্ত হয়। প্রকল্প সংগৃহীত সাক্ষাৎকারসমূহ মোটামুটিভাবে দলিলপত্র খন্ডসমূহের তিনটি পর্যায়ে সন্নিবেশিত হয়েছে । জনসাধারণের কাছ থেকে নেয়া গণহত্যা ও নির্যাতনের বিবরণ অষ্টম খন্ডে, সশস্ত্র বাহিনী ও মুক্তিযোদ্ধাদের সাক্ষাৎকার ‘সশস্ত্র সংগ্রাম ‘ ৯ম ও ১০ম খন্ডে এবং রাজনৈতিক নেতা, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, দূত ও কূটনীতিক, শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক , বিশিষ্ট ব্যাক্তি ও জন প্রতিনিধিদের সাক্ষাৎকার নিয়ে এই খণ্ডটি প্রস্তুত করা হয়েছে । প্রকল্প সাক্ষাৎকার গ্রহণের তালিকায় গুরুত্বপূর্ণ সম্ভাব্য সকলের নামই ছিল। কিন্তু সাক্ষাৎকার গ্রহণের দীর্ঘ প্রক্রিয়া সাপেক্ষ। প্রকল্পের সীমিত সময়সীমা মধ্যে ও গবেষকদের স্বল্পতা দরুণ অনেকের সাক্ষাৎকার গ্রহণ সম্ভব হয় নি। অন্যদিকে সাক্ষাৎকার দাতাগণের পক্ষ থেকে প্রকল্পের সাফল্য ও নিরপেক্ষতার সম্পর্কে সংশয় ও এক দশক আগের স্বাধীনতাযুদ্ধকালের ঘটনাবলি যথাযথভাবে বলবার বা লিখার জন্য উপযুক্ত সময় ও প্রস্তুতির অভাবে অনেকে সাক্ষাৎকার দিতে সমর্থ হন নি। আবার অনেকে প্রকল্প কর্মীদের আশ্বাস দিয়ে ও অনেকদিন ঘুরিয়ে অবশেষে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছেন। এতদসত্ত্বেও কয়েকজনের কাছ থেকে আমরা অত্যন্ত পরিশ্রমলব্ধ সুদীর্ঘ বিবরণ পেয়েছি এবং সেগুলো এখানে মুদ্রিত হয়েছে ।এগুলোর অধিকাংশ অন্যান্য খণ্ডে মুদ্রিত দলিলপত্র দ্বারা সমর্থিত। প্রকল্পের গৃহীত সময়সীমার মধ্যে সাক্ষাৎকারদাতার মূল বক্তব্য আমরা ছাপাবার প্রয়াস পেয়েছি, প্রত্যেকটি বিবরণের শেষে তারিখও মুদ্রিত হয়েছে, সাক্ষাৎকার গ্রহণের সময় বিবরণদাতাকে প্রকল্পের সাধারণ কিংবা বিশেষ প্রশ্নমালা দেয়া হয়েছিল। তিনি কখনো সেটি পুরোপুরিভাবে অনুসরণ করেছেন, কখনো আংশিকভাবে কয়েকটি বিবরণ তাঁরা নিজেরাই লিখে দিয়েছেন কোন প্রশ্নমালা ছাড়া। এই সবগুলোর মধ্যে সামঞ্জস্য রক্ষার জন্য প্রশ্নসমূহ বাদ দিয়ে শুধু বক্তব্য মুদ্রিত করা হয়েছে। সাক্ষাৎকার সমূহের ক্রমবিন্যাস বিবরণদাতার নামের আদ্যক্ষর অনুসারে করা হয়েছে। এসবের মধ্যে সংসদ সদস্যদের সাক্ষাৎকারসমূহ বাংলা একাডেমী কর্তৃক স্বাধীনতা লাভের অনতিপরে (১৯৭৩-৭৪) গৃহীত হয়েছিল। তথ্যাদির স্বল্পতা সত্ত্বেও স্থানীয় এলাকার প্রতিনিধিত্বশীল হিসেবে এদের অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। এগুলি বাছাই করা হয়েছে বিবরণীতে উল্লেখিত তথ্য ও ঘটনাদির গুরুত্বের দিকে লক্ষ্য রেখে। উল্লেখ্য যে, সাক্ষাৎকার গ্রহণ ও মুদ্রণের কাজ যুগপতভাবে করতে হয়েছে এবং এ কারণেই অপেক্ষাকৃত পরে গৃহীত একটি সাক্ষাৎকার সবশেষে সন্নিবেশিত হয়েছে আদ্যাক্ষর ক্রম ব্যাতিক্রমে। এই খন্ডে মুদ্রিত সাক্ষাৎকারসমূহ বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশ আন্দোলনের অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ও তথ্য উদঘাটিত করবে বলে আমরা আশা করি।

সূচিপত্র

(ডিজিটাইজেশনের তারিখঃ ০৭-০৯-২০১৭ খ্রি.)

(পৃষ্ঠা নাম্বারগুলো মূল দলিলের পৃষ্ঠা নাম্বার অনুযায়ী লিখিত)

ক্রম বিষয় পৃষ্ঠা অনুবাদক
 আজিজুর রহমান মল্লিক, অধ্যাপক,
উপাচার্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়;
বহির্বিশ্বে বাংলাদেশ আন্দোলনের অন্যতম নেতা
ইব্রাহিম রাজু
 আফসার আলী আহমেদ,
আওয়ামী লীগ দলীয়
জাতীয় পরিষদ সদস্য, রংপুর
১৪ মেহজাবীন মোস্তফা

 

 আব্দুর রাজ্জাক মুকুল,
আওয়ামী লীগ দলীয়
জাতীয় সংসদ সদস্য (১৯৭৩)
১৫ তায়িন উল হক

 

 আব্দুল করিম খন্দকার,
পাকিস্তান সশস্ত্র বাহিনীর জ্যৈষ্ঠতম বাঙালি অফিসার,
বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর ডেপুটি চীফ অব স্টাফ
১৭ তাজমুল আখতার
আবদুল খালেক,
সারদা পুলিশ একাডেমির প্রিন্সিপাল,
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্র সচিব ও আইজিপি
২৫ মেহজাবিন মোস্তফা
সামিউল হাসান প্রান্ত
 আবদুল বাসিত সিদ্দিকী,
আওয়ামী লীগ দলীয় প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য, টাঙ্গাইল
৩৫ আলামিন সরকার
 আবদুল মালেক উকিল,
আওয়ামী লীগ দলীয় জাতীয় পরিষদ সদস্য, নোয়াখালী;
অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি বিশেষ প্রতিনিধি
৩৬ মাইমুনা তাসনিম
 আবু সাঈদ চৌধুরী, বিচারপতি,
উপাচার্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়;
বহির্বিশ্বে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রতিনিধি এবং লন্ডনে বাংলাদেশ আন্দোলনের নেতা
৪২ আলামিন সরকার
আমিরুল ইসলাম, ব্যারিস্টার, আওয়ামী লীগ দলীয় নেতা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর অন্যতম উপদেষ্টা (১ম অংশ)

আমিরুল ইসলাম, ব্যারিস্টার, আওয়ামী লীগ দলীয় নেতা, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর অন্যতম উপদেষ্টা (২য় অংশ)

৫১ আমিনুল হক পলাশ
১০  আসহাবুল হক, মৌলভি, গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা, চট্টগ্রাম ১১০ সৈয়দা ইশরাত জাহান কনক

 

১১  এ, এম, এ মুহিত,
অর্থনৈতিক কাউন্সিলর, পাকিস্তান দূতাবাস, ওয়াশিংটন;
আনুগত্য প্রকাশকারী কূটনীতিক ও যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ আন্দোলনের অন্যতম নেতা
১১৩ তাজমুল আখতার
১২  এম আর সিদ্দিকী,
আওয়ামী লীগ দলীয় জাতীয় পরিষদ সদস্য, চট্টগ্রাম;
প্রশাসনিক পরিষদ প্রধান, ইস্টার্ন জোন;
বাংলাদেশ মিশন প্রধান, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা
১২১ ইব্রাহিম রাজু
১৩  এম এ হান্নান,
আওয়ামী লীগ নেতা, চট্টগ্রাম;
লিয়াজো অফিসার, পূর্বাঞ্চলীয় জোন 
১২৭ লিও
এবং
ইব্রাহিম রাজু
১৪  ওয়াহিদুল হক,
সাংবাদিক
১৩০ মাইমুনা তাসনিম
এবং
মেহজাবীন মোস্তফা
১৫  কণিকা বিশ্বাস,
আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্যা, ফরিদপুর (সংরক্ষিত আসন)
১৩৩ লিও
এবং
ইব্রাহিম রাজু
১৬  কাজী জাফর আহমেদ,
সভাপতি, বাংলা শ্রমিক ফেডারেশন (ভাসানীপন্থি ন্যাপ নেতা)
১৩৪ মারুফ আহমেদ
১৭  কামাল সিদ্দিকী, ডক্টর,
মহকুমা প্রশাসক, নড়াইল;
ব্যক্তিগত সচিব, পররাষ্ট্রমন্ত্রী,গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
১৩৯ সানজানা এস পায়েল
১৮  কামাল হোসেন, ডক্টর, আওয়ামী লীগ নেতা (১ম অংশ)

কামাল হোসেন, ডক্টর, আওয়ামী লীগ নেতা (২য় অংশ)

১৪৩ লিও,
অমিতাভ বড়ুয়া,
আশফাকুল ইসলাম তন্ময়
এবং
নো বেল
১৯  খন্দকার আসাদুজ্জামান,
যুগ্মসচিব, অর্থ, পূর্ব-পাকিস্তান প্রাদেশিক সরকার;
অর্থ সচিব, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
১৯৩ হৃতহৃ ইসলাম
২০  জয় গোবিন্দ ভৌমিক,
জেলা ও দায়রা জজ, ঢাকা;
রিলিফ কমিশনার, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
১৯৮ গুরু গোলাপ
২১  দেওয়ান ফরিদ গাজী,
আওয়ামী লীগ দলীয় জাতীয় পরিষদ সদস্য;
প্রশাসনিক পরিষদ প্রধান, উত্তর-পূর্ব জোন,
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
২০৪ আমিনুল হক পলাশ
২২  দেবব্রত দত্ত গুপ্ত, অধ্যাপক, চৌমুহনী কলেজ;
উপ-পরিচালক ও প্রশিক্ষণ সমন্বয়কারী,
ইয়ুথ ক্যাম্প ডাইরেক্টরেট, পূর্বাঞ্চলীয় জোন
২০৫ হৃতহৃ ইসলাম
২৩  মণি সিংহ, সভাপতি, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি ২১৩ ইব্রাহিম রাজু
এবং
আলিমুল ফয়সাল
২৪  মনসুর আলী, আওয়ামী লীগ দলীয় প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য, খুলনা ২২৩ মোঃ কাওসার আহমেদ
২৫  মমতাজ বেগম, আওয়ামী লীগ দলীয় জাতীয় পরিষদ সদস্য (মহিলা আসন), কুমিল্লা ২২৪ মোঃ কাওসার আহমেদ
এবং
অনয়
২৬  মোশাররফ হোসেন, আওয়ামী লীগ দলীয় প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য, চট্টগ্রাম ২২৫ আলামিন সরকার
২৭  মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, আওয়ামী লীগ দলীয় জাতীয় পরিষদ সদস্য, দিনাজপুর ২২৭ ইব্রাহিম রাজু
২৮  মোহাম্মদ আজিজুর রহমান,
আওয়ামী লীগ দলীয় প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য, সিলেট
২২৯ আলিমুল ফয়সাল
২৯  মোহাম্মদ আবদুর রব, মেজর জেনারেল (অব:),
আওয়ামী লীগ দলীয় প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য, সিলেট;
বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর চীফ অব জেনারেল স্টাফ
২৩২ সানজানা এস পায়েল
৩০  মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, অধ্যাপক,
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা;
মুজিবনগরে মন্ত্রিসভার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রের পাঠক
২৩২ আলামিন সরকার
৩১  মোহাম্মদ বয়তুল্লাহ, আওয়ামী লীগ দলীয় জাতীয় পরিষদ সদস্য, রাজশাহী ২৪৪ হুসাইন মোহাম্মদ ইশতিয়াক
৩২  মোহাম্মদ শামসুল হক চৌধুরী, আওয়ামী লীগ দলীয় প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য, রংপুর ২৪৬ আলামিন সরকার
৩৩  মোহাম্মদ শামসুল হক, অধ্যাপক, পদার্থবিদ্যা বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ২৪৮ আলামিন সরকার
৩৪  মোহাম্মদ হুমায়ূন খালিদ, অধ্যক্ষ,
আওয়ামী লীগ দলীয় জাতীয় পরিষদ সদস্য, টাঙ্গাইল
২৫১ রাজু আহসান হাবীব
৩৫  মোহাম্মদ রহমতউল্লাহ, দৈনিক ‘জয়বাংলা’ সম্পাদক,
নওগাঁ থেকে প্রকাশিত (মার্চ- এপ্রিল’ ৭১)
২৫২ আলামিন সরকার
৩৬  রেহমান সোবহান, অধ্যাপক,
পাকিস্তান আমলে পূর্বাঞ্চলীয় পৃথক অর্থনীতির অন্যতম প্রবক্তা ও বহির্বিশ্বে বাংলাদেশ আন্দোলনের অন্যতম নেতা
২৬৩ লিও
এবং
অমিতাভ বড়ুয়া
৩৭  শাহ জাহাঙ্গীর কবীর, আওয়ামী লীগ দলীয় জাতীয় সংসদ সদস্য (১৯৭৩) ২৯৩ আলামিন সরকার
৩৮  সাঈদ-উর-রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র;
যুবশিবির ‘পলিটিক্যাল মটিভেটর’
২৯৪ ঈসা মেহেদী
৩৯  সারওয়ার মুর্শেদ, অধ্যাপক, ইংরেজি বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়;
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য
২৯৮ গুরু গোলাপ
৪০  সিরাজুর রহমান, অনুষ্ঠান কর্মকর্তা, বাংলা বিভাগ, বিবিসি, লন্ডন ৩০২ মেহজাবীন মোস্তফা

 

৪১  সৈয়দ আলী আহসান, অধ্যাপক, সভাপতি, বাংলা বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়;
সভাপতি, বাংলাদেশ আর্কাইভস
৩০৫ দীপায়ন অর্ণব
৪২  অজয় রায়, ডক্টর,
রিডার, পদার্থবিদ্যা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়;
বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সম্পাদক (জুলাই ৭১ হতে)
৩১৩ ইব্রাহিম রাজু

 

সাইটে অনুবাদকৃত পঞ্চদশ খণ্ডের দলিলসমূহ মূল দলিলের সাথে ক্রস-ভেরিফিকেশনের জন্য এই উইকিসোর্স লিঙ্কে ক্লিক করুন। উল্লেখ্য, মূল দলিলে উল্লিখিত পৃষ্ঠা নম্বরের সাথে ‘২৫’ যোগ করলে উইকিসোর্সে সংশ্লিষ্ট পৃষ্ঠা পাওয়া যাবে। যেমন মূল দলিলের ৩১৩ নম্বর পৃষ্ঠাটি দেখার জন্য উইকিসোর্সের (৩১৩+২৫) বা, ৩৩৮ নং পৃষ্ঠাটি দেখুন।