৮ম খণ্ড

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ: দলিলপত্র থেকে বলছি (৮ম খণ্ড)

দলিল প্রসঙ্গঃ গণহত্যা, শরণার্থী শিবির ও প্রাসঙ্গিক ঘটনা

২৫ শে মার্চের রাতে আকস্মিকভাবে ঢাকার বেসামরিক জনসাধারণের উপর পাক হানাদার বাহিনীর সামরিক হামলার পর থেকে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি তাঁদের আত্মসমর্পণের পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত তারা সারা বাংলাদেশে নির্বিচারে হত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণ, লুণ্ঠন ও অগ্নিসংযোগের যে ব্যাপক ক্রিয়াকলাপ চালায় সে সম্পর্কিত দলিলপত্র এই খন্ডে গ্রন্থিত হয়েছে। দলিলাদির প্রকৃতি অনুযায়ী এগুলো কয়েকটি ভাগে বিন্যস্ত করা হয়েছে। প্রথমে রয়েছে হত্যার প্রত্যক্ষদর্শী এবং নির্যাতন ও অগ্নিসংযোগের শিকার ব্যাক্তিগণের পাকিস্তান সেনাবাহিনীর এসব তৎপরতার বিরুদ্ধে জেনেভাস্থ মানবাধিকার কমিশনে প্রেরিত কয়েকটি আবেদনের অনুলিপি (পৃষ্ঠা ১-১১)। এরপরে রয়েছে বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকার গৃহীত সাক্ষাৎকার (পৃষ্ঠা ১২-৩২৪)। বাংলাদেশের ৪ টি আঞ্চলিক বিভাগের প্রতিটি জেলার সর্বশ্রেনীর জনসাধারণের কাছ থেকে নেয়া সাক্ষাৎকার হতে প্রতিনিধিত্বমূলক ২৬২ টি এখানে সন্নিবেশিত করা হয়েছে। মোটামুটিভাবে হানাদার বাহিনীর হাত থেকে আকস্মিকভাবে বেঁচে যাওয়া, তাঁদের বর্বর নির্যাতনের সাক্ষী ও ধর্ষিত নারীসহ বিভিন্ন ব্যাক্তিবর্গের এসব বিবৃতির মাধ্যমে বাংলাদেশের পল্লীগ্রাম তথা প্রত্যন্ত অঞ্চলে হানাদার বাহিনীর হত্যাকাণ্ড ও ধ্বংসযজ্ঞের ধরণ ও পদ্ধতির একটি সামগ্রিক চিত্র এই অধ্যায়ে পাওয়া যাবে। এই একই চিত্র আমরা তুলে ধরার প্রয়াস করেছি আরেকটি মাধ্যম থেকে। সেটি হলো বাংলাদেশের পত্রপত্রিকা ও সাময়িকী (পৃষ্ঠা ৩২৫-৫২০)। এখানে উল্লেখ্য যে, ২৫শে মার্চের পর ঢাকা এবং দখলদার বাহিনী কবলিত বাংলাদেশের অন্যান্য এলাকার পত্রপত্রিকা সমূহ গণহত্যা ও নির্যাতনের কোনো খবর প্রকাশ করতে পারে নি। দখলদার কবলিত বাংলাদেশের গণহত্যার ৯ মাসের ঘটনাবলী পত্রপত্রিকায় উন্মোচিত হতে শুরু করে কেবলমাত্র বিজয়ের পর। সেকারণেই তৎপরবর্তীকালের বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও সাময়িকীতে প্রকাশিত গণহত্যার তথ্য ও সংবাদ নিবন্ধ নিয়েই নির্মিত হয়েছে এই অধ্যায়। ‘বাংলার বাণী’ ওই সময় গণহত্যার উপর বের করে বিশেষ সংখ্যা। সেখান থেকে বেশ কয়েকটি নিবন্ধ এখানে সংকলিত হয়েছে। পত্রপত্রিকা থেকে নেয়ার সময় বিষয়বস্তুর দিকেই মূলত লক্ষ্য রাখা হয়েছে- পত্রিকাবিশেষ নয়। কোনও কোনও বিষয় একাধিক পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার ক্ষেত্রে ঘটনার বিবরণকে প্রাধান্য দিয়ে তার যেকোনো একটি হতে নেয়া হয়েছে। ২৫ শে মার্চের রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-ছাত্র-কর্মচারী এবং সারাদেশের শিক্ষক, সাংবাদিক, ডাক্তার, বুদ্ধিজীবী, প্রকৌশলী, সরকারী, পুলিশ ও সশস্ত্রবাহিনীর বাঙালি সদস্য এবং অন্যান্য সকল লোকদের উপর পাকবাহিনী ও তাদের দোসরদের দ্বারা পরিচালিত হত্যা ও নির্যাতনের বিচিত্র বিবরণ এই অধ্যায়ে বিধৃত হয়েছে। ১৪ ডিসেম্বর আল-বদরদের দ্বারা নিহত বুদ্ধিজীবীদের শেষ দিন ও শেষ কথা শীর্ষক প্রতিবেদনটি নেয়া হয়েছে সাপ্তাহিক ‘বিচিত্রা’ (১৭ ডিসেম্বর, ১৯৭৩) থেকে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকাশনা বিভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ শিক্ষক-ছাত্র-কর্মচারীদের যে তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে সেটি পরিশিষ্টে সংযোজন করা হয়েছে (পৃষ্ঠা ৫৭৪)। আরেকটি পরিশিষ্টে সংযোজিত হয়েছে ’৭২ সালের তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রকাশিত ‘বাংলাদেশ’ গ্রন্থে মুদ্রিত সারাদেশের শহীদ শিক্ষক, সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতা ও কর্মী তথা বুদ্ধিজীবী ও বিভিন্ন পেশাজীবীদের নামের তালিকা (পৃষ্ঠা ৫৭৬)। একাত্তরে বাংলাদেশে পাকবাহিনীর গণহত্যা বিশ্বের পত্রপত্রিকা ও বেতার মাধ্যমগুলোতেও ব্যাপকভাবে এসেছে। এই গণহত্যার ঘটনাবলী তাঁরা কিভাবে প্রত্যক্ষ করেছে, নমুনাস্বরুপ তার একটি সংক্ষিপ্ত চিত্রও এখানে উপস্থাপন করা হয়েছে “বিদেশী পত্রপত্রিকা” অংশে (পৃষ্ঠা ৫২১-৫৩৯)। উল্লেখ্য যে, ‘বিশ্ব জনমত’ (চতুর্দশ) খন্ডেও গণহত্যা ও বাংলাদেশের প্রসঙ্গে প্রচুর দলিল সন্নিবেশিত হয়েছে। হানাদারবাহিনীর হত্যা ও নির্যাতনে ভীত হয়ে লক্ষ লক্ষ বাঙালি ভারতে শরণার্থী হয়েছিল। তাদের দেশ ত্যাগ, নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধান, খাদ্য-চিকিৎসা ও ত্রাণের জন্য শিবিরে দিনযাপন ইত্যাদি বিষয় নিয়ে রচিত হয়েছে আরেকটি অধ্যায় ‘বাংলাদেশের শরণার্থী’। এই প্রসঙ্গে ‘ভারতীয় পত্রপত্রিকায় প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরণ’ শিরোনামে কিছু সংবাদ নিবন্ধ সংযোজিত হয়েছে এই খন্ডের শেষাংশে (পৃষ্ঠা ৫৪১)। এছাড়া ভারতে বাঙালি শরণার্থী শিবিরসমূহের একটি তালিকা এবং সংখ্যার একটি হিসাবও মুদ্রিত হয়েছে (পৃষ্ঠা ৫৫৯)। বাংলাদেশের গণহত্যার পূর্ণচিত্র একটি দলিলখন্ডে সন্নিবেশিত করা সম্ভব নয়। এখানে সারাদেশের আবাল-বৃদ্ধ-বণিতা সর্বশ্রেনীর মানুষের উপর পাকবাহিনীর হত্যা ও নির্যাতনের প্রতিনিধিত্বমূলক বিবরণ উপস্থাপনের চেষ্টা করা হয়েছে। উল্লেখ্য যে এসব বিবরণের মধ্যে সংখ্যার হিসাবগুলো সর্বক্ষেত্রে সম্পূর্ণ সঠিক নাও হতে পারে। তবে এগুলোর দ্বারা এই গণহত্যার প্রকৃতি এবং ব্যাপকতা ও এর গভীরতা সম্যকভাবে ধরা পড়ে।

সূচিপত্র

(ডিজিটাইজেশনের তারিখঃ ২৫-১২-২০১৭ খ্রি.)

(পৃষ্ঠা নাম্বারগুলো মূল দলিলের পৃষ্ঠা নাম্বার অনুযায়ী লিখিত)

ক্রমিক বিষয় পৃষ্ঠা অনুবাদক
 জেনেভাস্থ মানবাধিকার কমিশনের কাছে প্রেরিত বাংলাদেশে পাকবাহিনী কর্তৃক নির্যাতিত কতিপয় ব্যক্তির চিঠি নিটোল চন্দ্র দাশ

মাইমুনা তাসনিম
 গণহত্যা ও নির্যাতনের বিবরণঃ বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় গৃহীত সাক্ষাৎকার ১২-৩২৪
 ঢাকা বিভাগ ১২ মাঈমুনা তাসনিম,
নিয়াজ মেহেদী,
আলিমুল ফয়সাল
রুশদী সাকিব খান,
গুরু গোলাপ,
জেসিকা গুলশান তোড়া,
ইশতিয়াক মাহমুদ টিপু
 রাজশাহী বিভাগ (১ম অংশ)
রাজশাহী বিভাগ (২য় অংশ) 
৬৭ রকিবুল হাসান জিহান,
ইব্রাহিম রাজু
খুলনা বিভাগ (১ম অংশ)
খুলনা বিভাগ (২য় অংশ)
১৮৩ সাইফুল ইসলাম,
রকিবুল হাসান জিহান,
ইব্রাহিম রাজু,
ইশতিয়াক মাহমুদ টিপু,
ফাহমিদা শিমু,
নাজিয়া খান তিথি
 চট্টগ্রাম বিভাগ ২৭০ গুরু গোলাপ
 ঢাকায় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর গণহত্যার অভিযানের ওপর একটি প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরণ ৩২৫ মোহাম্মদ মহিদুর রহমান
 পাকবাহিনীর ‘ইকবাল হল’ আক্রমণের উপর দু’টি প্রতিবেদন ৩৩১ মোহাম্মদ মহিদুর রহমান
 জগন্নাথ হলে পাকবাহিনীর গণহত্যার উপর কয়েকটি প্রতিবেদন ৩৩৫ ফাহমিদা শিমু
 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকায় পাক বাহিনীর হত্যাভিযান ৩৪৯ ফাহমিদা শিমু
 গণহত্যার কিছু দলিল ৩৫৩ ইশতিয়াক মাহমুদ টিপু
 পাকসেনাদের হাতে লেঃ কমান্ডার মোয়াজ্জেম হোসেনের বিয়োগান্ত পরিণতির বিবরণ  ৩৫৬ ফাহমিদা শিমু
 ঢাকা প্রেসক্লাবের উপর ট্যাংকের বোমাবর্ষণঃ একটি প্রতিবেদন  ৩৫৯ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
১০  ময়নামতি ক্যান্টমেন্টে পাকবাহিনীর হত্যাযজ্ঞের উপর দুটি প্রতিবেদন ৩৬৬ আলামিন সরকার এবং হৃতহৃ ইসলাম
১১  নারায়ণগঞ্জে দু’জন ছাত্রের হত্যা কাহিনী ৩৭৩ আলামিন সরকার এবং ফাহমিদা শিমু

 

১২  ‘অট্টহাসিতে ফেটে পড়লো নরপশুরা’ ৩৭৪ নাজিয়া খান তিথি
১৩  পাকবাহিনীর জিঞ্জিরা আক্রমণ ৩৭৬ আশফাকুল ইসলাম তন্ময়
১৪  ‘জল্লাদেরা স্বামীর লাশটাও একবার আমাকে দেখতে দিলো না’ ৩৭৯ জেসিকা গুলশান তোড়া
১৫  মেজর জিয়ার পরিবারের উপর পাকবাহিনীর নির্যাতনের বিবরণ ৩৮১ মিরাজ সজল
১৬  ‘বর্বরতার রেকর্ড’ ৩৮৫ আলিমুল ফয়সাল
১৭  রমনা পার্কের বধ্যভূমি ৩৮৭ পরাজিতা নীল
১৮  সাভারের কয়েকটি হত্যা কাহিনী ৩৮৮ নো বেল
১৯  রংপুর জেলাটাই যেন বধ্যভূমি ৩৯০ নো বেল
২০  ‘আমার ভাইকে তোমরা হত্যা করো না’ ৩৯২ নো বেল
২১  কঙ্কালের মিছিল এখানে ৩৯৩ নো বেল
২২  সিরাজগঞ্জ যমুনা পাড়ের কিছু হত্যা-কাহিনী ৩৯৫ নো বেল
২৩  আর এক বদ্ধভূমি চট্টগ্রামের দামপাড়া ৩৯৬ নো বেল
২৪  গ্রামে গ্রামে পথে পথে বধ্যভূমি ৩৯৭ মোহাম্মদ মহিদুর রহমান
২৫  রাজশাহীর গর্তে আরো নরকংকাল ৩৯৯ অমিতাভ বড়ুয়া
২৬  ধামরাই আজ শ্মশান ৪০০  নো বেল
২৭  হাজীগঞ্জে খানসেনাদের হত্যাযজ্ঞের স্বাক্ষর ৪০২  নো বেল
২৮  কিশোরগঞ্জের হত্যাকাণ্ড ৪০৩ মোহাম্মদ মহিদুর রহমান
২৯  স্বাধীনতা এলো, দানবীর আর, পি, সাহা আজও এলেন না ৪০৫ ফাহমিদা শিমু
৩০  কুমিল্লা ও রাজশাহীতে (বিশ্ববিদ্যালয়) গণহত্যার স্বরূপ ৪০৭ ফাহমিদা শিমু
৩১  নাটোরের ছাতনীতে পাক বাহিনীর বর্বরতা ৪০৯ ওমর ফারুক তুষার
৩২  খান সেনারা ওকে বাঘের খাঁচায় ঢুকিয়েছিল ৪১১ ওমর ফারুক তুষার
৩৩  হাজার প্রাণের হত্যাপুরী লাকসাম সিগারেট ফ্যাক্টরি ৪১৩ ওমর ফারুক তুষার
৩৪  চাঁদপুরে আট মাসের বিভীষিকা ৪১৫ ওমর ফারুক তুষার
৩৫  রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পাক বাহিনীর হত্যা, লুট ও নির্যাতন ৪১৭ ওমর ফারুক তুষার
৩৬  নৃশংসতার আরেক স্বাক্ষর ভারতেশ্বরী হোমস ৪১৯ ওমর ফারুক তুষার
৩৭  দিনাজপুরে হত্যা ও লুণ্ঠন ৪২০ মোহাম্মদ মহিদুর রহমান
৩৮  ‘অরা ছবাইকে গুলি করে মেরেছে’ ৪২২ মোহাম্মদ মহিদুর রহমান
৩৯  কে ক’টা হত্যা করলো তার ওপর নির্ভর করতো খান সেনাদের পদোন্নতি ৪২৪ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪০  বগুড়ায় পাক বাহিনীর হত্যাকাণ্ডের ওপর ২টি প্রতিবেদন ৪২৬ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪১  খুলনায় নরমেধযজ্ঞ ৪৩০ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪২  চট্টগ্রামে বদ্ধভূমির সন্ধান ৪৩২ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪৩  চাঁদপুরে পাকবাহিনীর হত্যালীলার আরো কাহিনী ৪৩৩ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪৪  সৈয়দপুরে বাঙালি নিধন অভিযানের একটি প্রত্যক্ষ বিবরণ ৪৩৫ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪৫  জল্লাদেরা আছড়েও মানুষ মেরেছে ৪৩৭ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪৬  খুলনায় পাক বাহিনীর নরমেধযজ্ঞ ৪৩৯ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪৭  নওগাঁয় পাকিস্তানিদের হত্যাযজ্ঞের আরেকটি অধ্যায় ৪৪১ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪৮  ‘অমানুষিক নির্যাতনেও তাঁর মনের বলিষ্ঠতা কমে নি’ ৪৪৩ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৪৯  মানিকগঞ্জের একটি বধ্যভূমি সাটুরিয়া হাট ৪৪৪ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৫০  মরণপুরী ভোলা ওয়াপদা কলোনি ৪৪৫ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৫১  পটুয়াখালীর জেলখানায় বধ্যভূমি  ৪৪৭ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৫২  ময়মনসিংহে খান সেনাদের বর্বরতা ৪৪৮ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৫৩  অগ্নিদগ্ধ, লুণ্ঠিত, ধর্ষিত কাশিয়াবাড়ী ৪৪৯ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৫৪  ভৈরবের হত্যাকাণ্ড ৪৫১ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৫৫  ফেনীতে পাকবাহিনীর নৃশংসতার কাহিনী ৪৫২ আলিমুল ফয়সাল
৫৬  বগুড়ার ‘মান্নান ভাই’ এবং আরও কয়েকজন তরুণের হত্যার বিবরণ ৪৫৩ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৫৭  মনুব্রিজে প্রকাশ্য গণহত্যা ৪৫৪ ফাহমিদা শিমু
৫৮  মৌলভিবাজারে আরও বধ্যভূমির সন্ধান ৪৫৫ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৫৯  গোপালপুর সুগারমিলে গণহত্যা ৪৫৬ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৬০  স্বাধীনতার বেদীমূলে পিতা- পুত্র ৪৫৮ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৬১  কেউ পাশবিকতা থেকে অব্যাহতি পায় নি ৪৫৯ ফাতেমা জোহরা
৬২  পীর দরবেশরাও রেহাই পায় নি ৪৬১ পরাজিতা নীল
৬৩  নারকীয় তাণ্ডবের আর এক লীলাভূমি ৪৬২  নো বেল
৬৪  একটি হালকা মেশিনগানের জন্য বত্রিশটি জীবনের পরিসমাপ্তি ৪৬৩ গুরু গোলাপ
৬৫  আর এক শহীদ গণপরিষদ সদস্য নজমুল হক সরকার ৪৬৪ তানিয়া ইমতিয়াজ লিপি
৬৬  দানবীর নূতন চন্দ্র সিংহ বাঁচতে পারেন নি ৪৬৫ আলামিন সরকার
৬৭  রংপুরের দুটি গণসমাধি ৪৬৬ আলামিন সরকার
৬৮  অধ্যাপক মুজিবুর রহমান দেবদাস হয়ে বেঁচে আছেন ৪৬৭ আলামিন সরকার
৬৯  গাজীপুর অস্ত্র কারখানায় কয়েকজন কর্মচারীর হত্যাকাণ্ড ৪৭০ ফাহমিদা শিমু
৭০  নির্মম অত্যাচারে নিহত ওসি ৪৭২  নো বেল
৭১  রাজশাহীতে পাকবাহিনীর বর্বরতার প্রাথমিক জরীপ ৪৭৪  নো বেল
৭২  রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজের ক’জন শহীদ ৪৭৫  নো বেল
৭৩  পাক হানাদারদের ধবংসযজ্ঞের কবলে কয়েকটি ঐতিহাসিক স্মৃতিচিহ্ন ৪৭৭  নো বেল
৭৪  ‘ওরা ডাক্তার মেরেছে’ ৪৭৯ শাহরিয়ার রাফি
৭৫  ‘ওরা সাংবাদিক মেরেছে’ ৪৮২ শাহরিয়ার ফারুক
৭৬  যোগেশ বাবুর হত্যা কাহিনী ৪৮৩ ফাহমিদা শিমু
৭৭  ‘ইত্তেফাক’-এর সাংবাদিকের লেখায় ২৫ শে মার্চের রাতের সামরিক হামলার প্রত্যক্ষ বিবরণ ৪৮৫ ফাহমিদা শিমু
৭৮  ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজে পাকবাহিনীর হামলার বিবরণ ৪৮৯ ফাহমিদা শিমু
৭৯  একাত্তরে রংপুরের আলমনগর ৪৯২ শাহরিয়ার ফারুক
৮০  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনের মধুদা ৪৯৫ পরাজিতা নীল
৮১  লেঃ কর্নেল ডা. নুরুল আবসার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর ৪৯৭ মাইমুনা তাসনিম
৮২  ডঃ আয়েশার হত্যাকাণ্ড ৪৯৯ শাহরিয়ার রাফি
৮৩  হানাদার বাহিনীর সহযোগী আল-বদরদের হত্যার শিকার কয়েকজন ৫০০ ঈসা মেহেদী
৮৪  বেগম মুজিব কিভাবে কাটিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলো ৫১৩ মোহাম্মদ মহিদুর রহমান
৮৫  শহীদ শামসুল হক ও নুরুল হক ৫১৭ ফাহমিদা শিমু
৮৬  শহীদ চার ভাই ৫১৯ মাইমুনা তাসনিম
৮৭  গণহত্যা ও নির্যাতনের বিবরণঃ বিদেশী পত্র-পত্রিকা ৫২১ নিশম সরকার

এবং নিটোল চন্দ্র দাশ

৮৮  বাংলাদেশে শরণার্থী, গণহত্যা ও নির্যাতন প্রসঙ্গে ভারতীয় পত্র-পত্রিকায় প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরণ ৫৪১  নো বেল

এবং ফাহমিদা শিমু

৮৯  শরণার্থীদের উপর আই,আর,সি-র একটি রিপোর্ট ৫৫৩ নিটোল চন্দ্র দাশ
৯০  শরণার্থী ও শরণার্থী শিবির সম্পর্কিত কিছু তথ্য ৫৫৯ রাইসা সাবিলা
৯১  পরিশিষ্ট-১ পাকবাহিনী ও তাদের দোসরদের দ্বারা নিহত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র ও কর্মচারীদের নামের একটি তালিকা  ৫৭৩ রাইসা সাবিলা
৯২  পরিশিষ্ট-২ শহীদ বুদ্ধিজীবী ও বিভিন্ন পেশাজীবীদের নামের আরেকটি তালিকা ৫৭৫ শাহরিয়ার রাফি

 

সাইটে অনুবাদকৃত ৮ম খণ্ডের দলিলসমূহ মূল দলিলের সাথে ক্রস-ভেরিফিকেশনের জন্য এই উইকিসোর্স লিঙ্কে ক্লিক করুন। উল্লেখ্য, মূল দলিলে উল্লিখিত পৃষ্ঠা নম্বরের সাথে ‘২৭’ যোগ করলে উইকিসোর্সে সংশ্লিষ্ট পৃষ্ঠা পাওয়া যাবে। যেমন মূল দলিলের ৫৭৫ নম্বর পৃষ্ঠাটি দেখার জন্য উইকিসোর্সের (৫৭৫+২৭) বা, ৬০২ নং পৃষ্ঠাটি দেখুন।